//আগে ফিল্ডিং নয় দলীয় পারফরমেন্সকেই দুষলেন মুসফিক

আগে ফিল্ডিং নয় দলীয় পারফরমেন্সকেই দুষলেন মুসফিক

টসে জিতে আগে ফিল্ডিং নেয়া নয়, প্লেয়ারদের বাজে পারফরমেন্সকেই দায়ী করছেন মুসফিক। তিনি বলেন,

‘সবাই মিলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। দক্ষিণ আফ্রিকায় এমন উইকেট হবে অনুমান করা কঠিন। যতই ফ্ল্যাট উইকেট হোক, যদি সুবিধা নিতে চান, সেটা প্রথম দুই ঘণ্টায় নিতে হবে। বলতে পারেন না টস জিতে ব্যাটিং নিয়েই ৫০০ রান করতে পারতাম। ঠিকভাবে খেলতে পারলে তৃতীয় দিনে অনেক ভালো রান করতে পারতাম (প্রথম ইনিংসে)। হ্যাঁ, বলতে পারতাম, ফ্ল্যাট উইকেটে ব্যাটিং (শুরুতেই) করতে পারতাম। তবে ফ্ল্যাট উইকেটে আমাদের বোলাররা বোলিং করতে পারবে, এটা কখনোই বিশ্বাস করি না।’

‘ফ্ল্যাট উইকেটে আপনি উইকেট না পান, ঠিক জায়গায় বোলিং তো করতে পারেন। সে জন্যই তো জাতীয় দলে খেলছেন। কিন্তু আপনি এমন নয়। তাহলে আমিও তো ছয়টা বলের মধ্যে দুইটা লাইনে ফেলতে পারতাম। প্রথম ইনিংসে বোলাররা আমাকে অনেক হতাশ করেছে। এক সেশনে উইকেট না পান, রানটা আটকে রাখতে পারেন, যেটা দলকে কাজে দেয়। ৫০০-৫৫০ রানের বোঝা নিয়ে খেলা আর ৩০০-৪০০ রানের বিপক্ষে খেলা দুই রকম ব্যাপার। শুধু বোলার নয়, ব্যাটসম্যানদেরও দায় আছে। প্রথম ইনিংসে আমরা অনেক পিছিয়ে গিয়েছি। পুরো টেস্টে ব্যাটিং-বোলিংয়ে দুটিই খারাপ করেছি।’

“আমাদের ব্যাটিংয়ের ব্যাখ্যার কথা যদি বলেন, অবশ্য হতাশাজনক। সত্যি বলতে কি, অধিনায়ক হিসেবে আমি নিজেই ভুলে গেছি বাংলাদেশ শেষ কবে এমন ব্যাটিং করেছে। একশ রানের নিচে শেষ কবে অলআউট হয়েছি নিজেও মনে করতে পারছি না। খুবই খারাপ লাগছে।”

“উইকেট এমন কোনো আনপ্লেয়বল কিছু হয়নি বলে নিজেদের ওপর আমাদের একটা আত্মবিশ্বাস ছিল। ভাবিনি একটা সেশনের মধ্যে ৭ উইকেট পড়ে যাবে।”

“হারারও অনেক ধরন আছে। অবশ্যই ম্যাচ বাঁচানো খুব কঠিন হত। কিন্তু অন্তত দুইটা সেশন খেলার মতো সামর্থ্য তো আমাদের আছে। সেদিক থেকে বলব, অধিনায়ক হিসেবে, ব্যাটসম্যান হিসেবে খুব হতাশ। খুবই খারাপ লাগছে। এভাবে হারতে হবে কখনও ভাবিনি। এই হারের জন্য আমি জাতির কাছে ক্ষমা চাইছি।”

“আমাদের আরেকটা সুযোগ আছে পরের টেস্টে। অবশ্যই অনেক বড় কিছু করে দেখাতে হবে নয়তো এরকম লজ্জা ছাড়া আমরা কিছুই নিয়ে যেতে পারব না। চেষ্টা থাকবে ঘুরে দাঁড়িয়ে যেন আমাদের সেরাটা দিতে পারি। গত দুই-তিন বছর ধরে আমরা যে সম্মান অর্জন করেছি সেটা যেন বজায় রাখতে পারি। সেটা যেন না হারাই সেই চেষ্টাই থাকবে।”

TAGS: